জৈন্তাপুরে বহিষ্কৃত মাদ্রাসা সুপার আব্দুল গাফফারের অনিয়ম ও দূর্নীতির বিরুদ্ধে ইউএনও বরাবর অভিযোগ প্রদান

সিএনবাংলা ডেস্কঃ জৈন্তা জামেয়া ইসলামিয়া মহিলা মাদ্রাসার সাবেক ভারপ্রাপ্ত সুপার আব্দুল গাফফারের দায়িত্বকালীন সময়ের বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্নীতির বিষয়ে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর অভিযোগপত্র প্রদান করেছে জৈন্তিয়া ইসলামিক সোসাইটি।
রবিবার (৪ অক্টোবর) অত্র মাদ্রাসা ও সোসাইটির সভাপতি আব্দুল আহাদ স্বাক্ষরিত এ অভিযোগপত্র প্রদান করা হয়।
লিখিত অভিযোগপত্রে বলা হয়, ২০০৬ সালে জৈন্তিয়া ইসলামিক সোসাইটি কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত জৈন্তা জামেয়া ইসলামিয়া মহিলা মাদ্রাসায় বিগত ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষ থেকে মাদ্রাসার অস্থায়ী সহকারী শিক্ষক আব্দুল গাফফারকে ভারপ্রাপ্ত সুপারের দায়িত্ব প্রদান করা হয়। পরবর্তীতে তিনি দূর্নীতি ও অনিয়মে জড়িত হয়ে নিয়োগকর্তা ও পরিচালনা কমিটির সাথে শৃঙ্খলা পরিপন্থী কাজে লিপ্ত হতে শুরু করেন।
বিগত ২২ আগস্ট তাঁর উপস্থিতি ও স্বাক্ষরে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভায় ৫ সদস্যের অডিট কমিটি গঠন করা হয় এবং ১২ সেপ্টেম্বরের মধ্যে মাদ্রাসার যাবতীয় আয়-ব্যয়ের অডিট সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। কিন্তু রহস্যজনক কারনে সুপার অডিট কমিটির ডাকে বারবার অনুপস্থিত থাকেন এবং খাতাপত্রও দেখাতে ব্যর্থ হন। অতঃপর অডিট কমিটি বিগত ৫ সেপ্টেম্বর আব্দুল গাফফারকে লিখিত নোটিশ দিলে তিনি তা গ্রহনে অস্বীকৃতি জানান।
অভিযোগপত্রে আরও বলা হয়, অভিযুক্ত সুপার বিগত ২ সেপ্টেম্বর মাদ্রাসা ও সোসাইটির সাথে সম্পর্কহীন জনৈক হানিফ আহমদ নামীয় ব্যক্তিকে মাদ্রাসার উপদেষ্টা সদস্য পরিচয় সাজিয়ে পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও সহ-সভাপতির বিরুদ্ধে একটি ভিত্তিহীন অভিযোগ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর প্রেরণ করেন যা বর্তমানে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার কর্তৃক তদন্তাধীন আছে। অতঃপর মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটি ১৯/৯/২০২০ ইং উক্ত আব্দুল গাফফারকে তাঁর দায়িত্ব থেকে অব্যহতি দিয়ে দায়িত্বকালীন সময়ের হিসাব খাতাপত্র কর্তৃপক্ষ বরাবর সমঝিয়ে দেওয়ার নোটিশ পাঠালে তিনি ২০/৯/২০২০ ইং অব্যাহতি নোটিশ গ্রহন করেন।
অভিযোগপত্রে আরও অভিযোগ করা হয়, অব্যাহতি পরবর্তী মাদ্রাসা বা সোসাইটির সাথে সম্পর্কহীন বাইরের লোকজনকে প্ররোচিত করে নিজে সুপার ও সচিব সেজে একটি এখতিয়ারবিহীন, বেআইনি ও অগ্রহনযোগ্য আহ্বায়ক কমিটি গঠন এবং মাদ্রাসা সরকারী বন্ধকালীন সময়ে বাইরের কিছু তরুনকে বিভ্রান্ত ও প্ররোচিত করে মাদ্রাসা জবর দখলের পায়তারা করছেন বহিষ্কৃত সুপার আব্দুল গাফফার।
অভিযোগপত্রে মাদ্রাসার সাবেক ভারপ্রাপ্ত সুপার আব্দুল গাফফারের দায়িত্ব পালনকালীন সময়ের যাবতীয় অনিয়ম ও দূর্নীতি এবং বর্তমানে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পায়তারার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।
এ ব্যাপারে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটি ও জৈন্তিয়া ইসলামিক সোসাইটির সভাপতি এডভোকেট আব্দুল আহাদ কে ফোন করা হলে তিনি ডেইলি সিএনবাংলাকে অভিযোগপত্র প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন,মাদ্রাসার কোন উপদেষ্টা কমিটি নাই। জনৈক হানিফ আহমদ’র সাথে মাদ্রাসা ও সোসাইটির কোন ধরনের সম্পর্ক নাই।
অভিযোগের ব্যাপারে  বহিষ্কৃত সুপার আব্দুল গাফফারকে ফোন করা হলে তিনি ডেইলি সিএনবাংলাকে জানান, মাদ্রাসা দখলের অভিযোগ সহ আমার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অনিয়ম ও দূর্নীতির সকল অভিযোগ মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন।

Sharing is caring!

 

 

shares