ভার্চুয়াল জগতে বাতায়নের হিজরী নববর্ষ উদযাপন

স্টাফ রিপোর্টার :সুপ্ত প্রতিভার দীপ্তি বিকাশের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত শিক্ষা, বিজ্ঞান, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠন বাতায়ন হিজরী নববর্ষ উদযাপন করেছে।

ভার্চুয়ালী আরবী বছর কে স্বাগত জানিয়ে আজ হিজরী সনের প্রথম দিনে তারা বর্ষবরণের আয়োজন করে। বাতায়ন বাংলা ও ইংরেজী নববর্ষের মত হিজরী বছরকেও প্রমোট করতে চায়। একদল শিক্ষিত উদ্যমী আশাবাদী প্রতিশ্রুতিশীল যুবকদের এ সংগঠন সামাজিক পরিবর্তনে অঙ্গীকারাবদ্ধ।

আজ শুক্রবার সিলেট উইমেন্স নার্সিং কলেজের ইন্সট্রাক্টর লিডিং ইউনিভার্সিটির মাস্টার্স ইন পাবলিক হেলথ এর প্রতিভাবান ছাত্র বাতায়ন সচিব ফজলে রাব্বী আফজাল সাজুর সঞ্চাচলনায় হিজরি নববর্ষ’র বরণায়োজন অনুষ্টানে অতিথি ছিলেন বাতায়ন প্রধান পরিচালক দৈনিক শুভ প্রতিদিনের বিভাগীয় সম্পাদক, জৈন্তাপুর অনলাইন প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ রাসেল মাহফুজ, বাতায়ন সমন্বয়ক লুৎফুল করিম রাজ্জাক । অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ হিজরি নববর্ষ’র সূচনা,ইতিহাস-ঐতিহ্য, হিজরি সনের গুরুত্ব ও তাৎপর্য সম্পর্কে বিস্তর আলোচনা করেন।

বাতায়ন প্রধান পরিচালক হিজরি সনের গুরুত্ব বুঝাতে গিয়ে বলেন, দৈনন্দিন চলাফেরায় মুসলিম হিসেবে আমাদের হিজরি সনকে প্রাধান্য দেয়া উচিত। তিনি বলেন, হিজরি সন মুসলিমদের জন্য একটা মাইলফলক হিসেবে স্বীকৃত, এ সনের গুরুত্ব বুঝাতে গিয়ে তিনি কুরআন ও হাদিসের রেফারেন্সও ব্যক্ত করেছেন। হিজরী সন তথা চাঁদ দেখার উপর নির্ভর করে আমরা সাওম (রোজা) পালন করি, পবিত্র ঈদ উদযাপন করি, হজ্ব সম্পন্ন করি।

হিজরি সন সম্পর্কে বাতায়ন সমন্বয়ক বলেন, এ হিজরি সনে আল্লাহর নির্দেশে রাসুলুল্লাহ (সঃ) পবিত্র মক্কা নগরী থেকে মদিনায় হিজরত করেন। এ সময় তিনি হিজরত’র ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট সম্পর্কে তথ্যবহুল কথকও ব্যাক্ত করেন। বাতায়ন সমন্বয়ক বলেন, ইংরেজি নববর্ষ, বাংলা নববর্ষ উদযাপন’র যে কুসংস্কার আর পশু-পাখি,বিকৃত আকৃতি দিয়ে বর্ষবরণের যে প্রথা চালু হয়েছে তা থেকে আমাদের বের হয়ে আসতে হবে। বর্ষবরণের নামে বেহায়াপনার সংস্কৃতি থেকে বের হয়ে অাসতে বিশ্ববাসীর কাছে তিনি অনুরোধ জানিয়েছেন।

একজন কলেজ শিক্ষার্থী প্রশ্নের মাধ্যমে জানতে চেয়েছিলেন, হিজরি নববর্ষ কে কিভাবে আমরা প্রমোট করতে পারি? উত্তরে বাতায়ন প্রধান পরিচালক ও দৈনিক শুভ প্রতিদিন পত্রিকার বিভাগীয় সম্পাদক জানিয়েছেন, আমরা যদি স্কুল-কলেজ, মাদরাসায় বিভিন্ন সেমিনার, সিম্পোজিয়াম,সময়ে সময়ে বিশেষ ক্রোড়পত্র বের করি তাহলে আমরা হিজরি সনকে সামনে নিয়ে আসতে পারবো৷ তরুণ ছেলেমেয়েদের যদি হিজরি সন উপলক্ষে বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালা, প্রতিযোগিতার আয়োজন করে হিজরি সনের গুরুত্ব বুঝাতে পারি তবেই আমরা হিজরি সনকে প্রমোট করতে পারবো-ইন শা আল্লাহ।

অনুষ্টানে আরো ছিলেন বাতায়ন অর্থ সচিব মো: আলমাস উদ্দিন।

বাতায়ন সচিব ও অনুষ্টানের সঞ্চালক ফজলে রাব্বী সাজু দেশবাসীর কাছে দোয়া ও বাতায়ন’র অফিসিয়াল পেইজ থেকে বিভিন্ন অনুষ্ঠান, প্রতিযোগিতা ও লাইভ সম্প্রচার’র আমন্ত্রণ ও হিজরি নববর্ষ’র শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের ইতি টানেন।

Sharing is caring!

 

 

shares