বিভিন্ন দল ও সংগঠনের ঈদ শুভেচ্ছা

সিএনবাংলা ডেস্কঃ পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সংগঠন দেশবাসীর প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এবারের ঈদে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ও বন্যাদূর্গত মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আসার জন্যও আহবান জানানো হয়েছে।

চরমোনাই পীর : পবিত্র ঈদুল আযহা উপলে দেশবাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর চ্রমোনাই পীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম। শুভেচ্ছা বার্তায় তিনি এবারের ঈদুল আযহায় সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারের মাধ্যমে পারস্পরিক সহযোগিতা নিয়ে অসহায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ইসলামে ফেৎনা-ফাসাদ, হিংসা-বিদ্বেষের কোনো স্থান নেই বরং ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে সত্যিকার মানুষরূপে গড়ে উঠার শিক্ষা দেয়। তাই একমাত্র ইসলামই পারে অশান্ত দুনিয়ায় শান্তির সুবাতাস জারি করতে।

চরমোনাই পীর বলেন, ঈদুল আযহা আমাদেরকে ত্যাগ ও কুরবানীর আদর্শে উজ্জীবিত করে। মহান আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য আল্লাহর উদ্দেশ্যে সবকিছু বিলীন কওে দেয়ার চেতনা জাগ্রত করে। সামাজিক বৈষম্য দূর করেসন্ত্রাস, দুর্নীতি, মাদক, শোষণমুক্ত ও ইনসাফ ভিত্তিক সমাজপ্রতিষ্ঠায় কুরবানী আমাদেরকে অনুপ্রেরণা দেয়। ত্যাগ ও কুরবানীর মানসিকতা নিয়ে ব্যক্তিগত, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে ন্যায় এবং ইনসাফ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে ইসলামকে পরিপূর্ণভাবে অনুসরণ করতে হবে। আর এর মাধ্যমেই কেবল মহান আল্লাহ তায়ালার সন্তুষ্টি অর্জন করা সম্ভব।

খেলাফত মজলিস : দেশবাসী ও মুসলিম উম্মাহকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়েছেন খেলাফত মজলিসের আমীর অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের। গতকাল এক যৌথ শুভেচ্ছা বাণীতে নেতৃদ্বয় বলেন, ত্যাগের মহিমায় সমুজ্জল পবিত্র ঈদ-উল-আযহায় পশু কুরবানীর মধ্য দিয়ে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের প্রচেষ্টা করতে হবে। হযরত ইব্রাহীম ও ইসমাইল আ. এর কুরবানীর ঐতিহাসিক ঘটনাপঞ্জি স্মরণ করে মুসলমানরা আল্লাহর নির্দেশের কাছে নিজেদের সমর্পণের চেতনায় উজ্জীবিত হয়। কেবলমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্যই সার্র্র্র্মথবান সবাইকে পশু কুরবানী দিতে হবে।

নেতৃদ্বয় বলেন, করোনাভাইরাসের তান্ডবের মধ্যেই বন্যার প্রকোপে দিশেহারা প্রায় ৩১টি জেলার মানুষ।এ ভয়াবহ দুর্যোগের প্রেক্ষাপটে এব বছরের ঈদ-উল-আযহা বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। কুরবানীকৃত পশুর গোস্তে গরীবদের যে হক রয়েছে তা তাদের কাছে পৌঁছে দিতে হবে। পশুর চামড়ার হকদার গরীরা যাতে চামড়ার ন্যায্য মূল্য পায় সে জন্য সরকারকে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে। একই সাথে সবাইকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে সতর্কতার সাথে পশু ক্রয় ও কুরবানীর কার্য সম্পাদন করতে হবে।

জামায়াত ঢাকা মহানগর দক্ষিণ: পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ দেশবাসীর প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমীর নূরুল ইসলাম বুলবুল এবং কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ। এক যৌথবার্তায় তারা বলেন, ঈদুল আযহা আমাদেরকে প্রকৃত ত্যাগ ও কুরবানীর আদর্শে উজ্জীবিত হওয়ার মৌলিক প্রেরণা দেয়। আমরা যদি বাস্তব জীবনে ইসলামী আদর্শ অনুস্মরণ করে সমাজে ন্যায় ও ইনসাফ কায়েম করতে পারি তাহলেই কেবলমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন করা সম্ভব হবে। হযরত ইব্রাহীমের আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে শাষণমুক্ত সমাজ ও দেশ গঠনে প্রতিটি মুসলিমকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসতে হবে।
বিরাজমান পরিস্থিতির কারণে মানুষের ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ, চাকুরী-কর্ম হারিয়ে অসহায় হয়ে পড়েছে উল্লেক করে তারা এবারের ঈদুল আযহায় সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারের মাধ্যমে পারস্পরিক সহযোগিতা নিয়ে অসহায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য জামায়াতের ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নেতাকর্মী ও সমাজের বিত্তবান শ্রেনীর প্রতি আহবান জানান।

ইসলামী ছাত্রশিবির : ছাত্রসমাজসহ দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির। এক যৌথ শুভেচ্ছা কেন্দ্রীয় সভাপতি মোঃ সিরাজুল ইসলাম ও সেক্রেটারি জেনারেল সালাহউদ্দিন আইউবী বলেন, ত্যাগই ঈদুল আজহার মূল প্রেরণা যা আমাদেরকে হিংসা, বিদ্বেষ, লোভ, লালসা, পাপ-পঙ্কিলতা পরিত্যাগ করার শিক্ষা দেয়। সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক বৈষম্য ও শোষণমুক্ত একটি কল্যাণকর সমাজ ও রাষ্ট্র গঠনের জন্য ত্যাগ স্বীকারে অনুপ্রোরণা যোগায়।

তারা বলেন, করোনা ও বন্যার কারণে লাখ লাখ বিপদগ্রস্ত মানুষ সিমাহীন কষ্ট দূর্দশার মধ্যে দিনাতিপাত করছে। এ অবস্থায় আমাদের সর্বোচ্চ ত্যাগের নজির স্থাপন করতে হবে। যার যার সামর্থ অনুযায়ী বিপদগ্রস্ত মানুষদের ঈদ উদযাপনে সহযোগিতা করতে হবে। ধনী-গরীব, রাজনৈতিক বিভেদ ভুলে পবিত্র ঈদকে সুখময় কওে তোলাই হোক আমাদের প্রত্যয়। ঈদের আনন্দকে ঐক্যের সুদৃঢ় বন্ধনে পরিণত করে মুসলিম উম্মাহ সামনের দিকে এগিয়ে যাবে এটাই আমাদের কামনা।

 

সিএনবাংলা / মান্না

Sharing is caring!

 

 

shares