সিলেটে ‘পরিবহন ধর্মঘট’ প্রত্যাহার

নিউজ ডেস্কঃ আগামীকাল মঙ্গলবার (২২ মার্চ) ভোর ৬টা থেকে সিলেটে পরিবহন শ্রমিকরা অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির ঘোষণা দিয়েছিলেন। তবে সোমবার (২১ মার্চ) বিকেলে জেলা প্রশাসকের সঙ্গে এক জরুরি বৈঠক শেষে সে কর্মসূচি প্রত্যাহারের ঘোষাণ দিয়েছে তাদের সংগঠন সিলেট জেলা বাস মিনিবাস কোচ মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়ন।জেলা প্রশাসক কর্তৃক শ্রমিকদের ৪ দফা দাবি-ই এক সপ্তাহের মধ্যে পুরণের আশ্বাসের ভিত্তিতে ধর্মঘট প্রত্যাহার করেন শ্রমিক নেতৃবৃন্দ।বিষয়টি  সোমবার সন্ধ্যায় জানিয়েছেন সিলেট জেলা বাস মিনিবাস কোচ মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর রাজন।

এর আগে গত শনিবার এক বৈঠকের মাধ্যমে মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে সিলেটে পরিবহন শ্রমিকরা অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির ঘোষণা দেন। ৪ দফা দাবি বাস্থবায়ন না হওয়ায় এই কর্মসূচির ডাক দেওয়া হয়।দাবিগুলো হচ্ছে- ১) সড়ক দুর্ঘটনাজনিত মামলায় ৩০৪ (খ) ধারায় চালককে জামিন প্রদান করতে হবে, ২) ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়নে ডোপ টেস্ট বাতিল করতে হবে, ৩) নুতন ও নবায়ন ড্রাইভিং লাইসেন্স দ্রুত সময়ে প্রদান করতে হবে, একই সাথে পুরাতন লাইসেন্স নবায়নের জন্য বন্ধ থাকা ফিঙ্গার নেয়া পুনরায় চালু করতে হবে এবং ৪) সরকারি খাস জমিতে গাড়ি পার্কিংয়ের স্থান প্রদান করতে হবে ও রং পার্কিং এবং রেকারিং মামলা বন্ধ করতে হবে।

তবে কর্মবিরতির আগের দিন (আজ সোমবার) বিকেলে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে পরিবহন শ্রমিক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসেন সিলেট জেলা প্রশাসক মো. মজিবুর রহমান। বৈঠকে তাৎক্ষণিকভাবে ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়নে ডোপ টেস্ট বাতিল ও সিলেটে সরকারি খাস জমিতে গাড়ি পার্কিংয়ের স্থান প্রদান- এই দুই দাবি মেনে নেওয়া হয়। আর বাকি দুটো এক সপ্তাহের মধ্যে আলোচনার মাধ্যমে পুরণের আশ্বাস দেন জেলা প্রশাসক।

বৈঠক শেষে সিলেট জেলা বাস মিনিবাস কোচ মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মায়নুল ইসলাম কর্মবিরতি প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন।এসময় তিনি বলেন, জেলা প্রশাসক এমন উদ্যোগ গ্রহণ করায় তাঁকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই। এক সপ্তাহের মধ্যে তিনি সব দাবি পুরণের আশ্বাস প্রদান করেছেন। তবে দাবিগুলো পুরণ না হলে আমরা অবশ্যই আবার কর্মবিরতি পালনের ডাক দিবো।

Sharing is caring!

 

 

shares