প্রশ্নফাঁসে মেডিকেল-ডেন্টালে ভর্তি শিক্ষার্থীদের ছাত্রত্ব বাতিল হচ্ছে

সিএনবাংলা ডেস্কঃ ফাঁস করা প্রশ্নপত্রে মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের ছাত্রত্ব বাতিল করা হবে। প্রশ্নফাঁসে যুক্ত ৭৮ জন শিক্ষার্থীর নামের তালিকা পেয়েছে সিআইডি।

সম্প্রতি দেশের মেডিকেল-ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে জড়িত স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তারের পর নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। আর এর অংশ হিসেবেই এমন সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল (বিএমডিসি)।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএমডিসির সভাপতি প্রফেসর ডা. মোহাম্মদ সহিদুল্লাহ বলেন, যে ৭৮ জনের নাম পাওয়া গেছে, তাদের বিরুদ্ধে যদি অভিযোগ প্রমাণ হয় তাহলে বিএমডিসি এই বিষয়ে ব্যবস্থা নেবে। যারা অভিযুক্ত থাকবে বিএমডিসি তাদের ছাত্রত্ব বাতিল করার ক্ষমতা রাখে।

এ বিষয়ে মেডিকেল শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক এ কে এম অহসান হাবীব বলেন, যদি তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ হয়, তাহলে বিএমডিসি এবং মন্ত্রণালয় যে সিদ্ধান্ত নেবে আমরা সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস নিয়ে তদন্ত করে সিআইডি। ওই মামলায় ১২৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। ওই মামলায় গ্রেপ্তার ৪৭ জনের মধ্যে ৪৬ জনই আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। তাঁদের কয়েকজনের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ২০১৮ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ভর্তি প্রশ্নপত্র ফাঁস করা চক্রটির সন্ধান পায় সিআইডি।

ওই তথ্যের ভিত্তিতে ১৯ জুলাই চক্রের সদস্য এস এম সানোয়ার হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি ২০১৩, ২০১৫ ও ২০১৭ সালের মেডিকেল ও ডেন্টাল ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেন। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ২০ জুলাই রাজধানীর মিরপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে জসিম উদ্দিন ওরফে মন্নু, পারভেজ খান, জাকির হোসেন মোহাইমিনুলকে গ্রেপ্তার করে। ওই দিনই ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে মিরপুর থানায় পাবলিক পরীক্ষা আইনে মামলা করে সিআইডি। মামলায় ১৫০ থেকে ২০০ অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে। এদের মধ্যে সানোয়ার ও মোহাইমিনুল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তাঁরা এখন কারাগারে।

২০১৩ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত অন্তত চার হাজার শিক্ষার্থী প্রশ্নপত্র ফাঁসের মাধমে বিভিন্ন মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ভর্তি হয়েছেন বলে সিআইডির হাতে আটক চক্রটি জানায়।

সিএনবাংলা/ মান্না

Sharing is caring!

 

 

shares