পুলিশের সাথে বন্দু্ক যুদ্ধে ইউপি সদস্য সহ নিহত ২; আহত ৪ পুলিশ

সি.এন.বাংলা ডেস্কঃ পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ একজন ইউপি সদস্যসহ দুজন নিহত হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে কক্সবাজারের টেকনাফে। পুলিশ বলছে, তারা তালিকাভুক্ত মাদক কারবারি।

নিহতরা হলেন— জেলার উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের কুতুপালং এলাকার বাসিন্দা ও ৯ নম্বর ওয়ার্ড ইউপি সদস্য বখতিয়ার আহমেদ ওরফে বখতিয়ার মেম্বার (৫৫) ও উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা শরণার্থীশিবিরের ই ব্লকের বাসিন্দা ইউসুফ আলীর ছেলে মোহাম্মদ তাহের (২৭)।

ঘটনাস্থল থেকে ১০ লাখ টাকা, ২০ হাজারটি ইয়াবা বড়ি, দেশীয় পাঁচটি আগ্নেয়াস্ত্র (এলজি), ১৭টি তাজা গুলি ও ১৩টি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের ওয়াব্রাং সৌদিপ্রবাসী নুর হোসেনের গাছের বাগানে এ ‘বন্দুকযুদ্ধ’ ঘটে গতকাল রাত ২ টার দিকে।

পুলিশ জানিয়েছে, এই দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় পুলিশের চারজন সদস্য সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মাজহারুল ইসলাম, কনস্টেবল শহিদুল ইসলাম, মোহাম্মদ হাবিব ও আবু হানিফ আহত হন।

টেকনাফ মডেল থানার পুলিশ বলছে, বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে ওসি প্রদীপ কুমার দাশের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল উখিয়ার কুতুপালং এলাকায় অভিযান চালায়। এই সময় মাদক বিক্রয়ের ১০ লাখ টাকাসহ মাদক মামলার পলাতক আসামি বখতিয়ার আহমেদ ও তাহেরকে গ্রেফতার করে থানায় আনা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে রাত দেড়টার দিকে তাদের নিয়ে টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের ওয়াব্রাং সৌদিপ্রবাসী নুর হোসেনের আকাশি গাছের বাগানে মজুদ ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধারে যায় পুলিশ। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তাদের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এতে পুলিশের চারজন সদস্য আহত হন। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এ সময় দু’দলের গোলাগুলির মাঝখানে পড়ে বখতিয়ার মেম্বার ও তাহের গুলিবিদ্ধ হন। মোহাম্মদ ইউনুস নামে আরও একজনকে সুস্থ অবস্থায় আটক করতে পুলিশ সক্ষম হয়।

সিএনবাংলা/এসআরএইচ

Sharing is caring!

 

 

shares